গোয়ালন্দের চরাঞ্চলের গৃহবধূরা জন্মনিয়ন্ত্রণ সর্ম্পকে কিছু জানেন না !

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ফেরিঘাট থেকে উজানে পদ্মার বুকে জেগে ওঠা চর কুশাহাটা। জন্মনিয়ন্ত্রণ সম্পর্কে ধারণা না থাকায় এ চরে সন্তান জন্মহার অনেক বেশি। চরে ১০২ পরিবারে ৭৫০ মানুষের বসবাস।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, চরটির পূর্বদিকে দৌলতদিয়া ঘাট, পশ্চিমে পাবনার ঢালার চর, উত্তরে মানিকগঞ্জের কানাইদিয়া চর এবং দক্ষিণে রাজবাড়ী সদরের বরাট গ্রাম। যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম ইঞ্জিনচালিত নৌকা। উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের দুর্গম ওই চরের বাসিন্দারা শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবাসহ বিভিন্ন নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত। সহজ যোগাযোগ ব্যবস্থার অভাবে প্রায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়া চরবাসীর মধ্যে আধুনিকতার ছোঁয়া এখনো পড়েনি।

গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারে ছয় কিলোমিটার নৌপথ পাড়ি দিয়ে দুর্গম ওই কুশাহাটা চরে গিয়ে দেখা যায়, চারদিক বর্ষার পানি থইথই করছে। এলাকার ফসলি জমি ডুবে গোটা কুশাহাটা গ্রাম পানিবন্দি।

এ সময় গ্রামবাসী অনেকের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, কৃষিকাজের পাশাপাশি নদীতে মাছ ধরে জীবিকা নির্বাহ করে তারা। সেখানে প্রায় প্রতিটি পরিবারে রয়েছে চার থেকে ছয়জন করে সন্তান।

কুশাহাটা চরের বাসিন্দা সত্তর বছরের বৃদ্ধ মোহন বেপারী জানান, শিশু স্বাস্থ্য ও পরিকল্পিত পরিবার গঠনের সঠিক ধারণা না থাকায় এই চর এলাকায় বাল্যবিয়েসহ সন্তান জন্মহার দিন দিন বাড়ছে।

এ সময় কুশাহাটা গ্রামের গৃহবধূ জয়নব বেগম, শরিফা আক্তার, হাজেরা বেগম ও রেশমা আক্তারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, অল্প বয়সে তাদের বিয়ে হয়েছে। কিন্তু জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি সম্পর্কে তারা কিছুই জানেন না।

ওই গ্রামের মৎস্যজীবী আবুল প্রামাণিক বলেন, ‘জন্মো নিয়োন্ত্রণের জন্যি সরকার থিকা মাগনা অনেক ওষুদ দেয়, তা হুনছি। কিন্তু এই নিয়া সরকারি কোনো লোক আমাগের এই চরে আসে না। আবার আইলসা কইরা আমরাও হাসপাতালে যাই না।’

গোয়ালন্দ উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) ডা. মো. আব্দুর রহমান বলেন, ‘পরিবার কল্যাণ সহকারী পদে লোকবল অনেক কম থাকায় এলাকার মাঠপর্যায়ে জন্মনিয়ন্ত্রণ-সংক্রান্ত সেবা প্রদান ব্যাহত হচ্ছে। তবে জরুরি ভিত্তিতে ওই পদে লোকবল বাড়ানোর বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Captcha loading...