দৌলতদিয়ায় বাস চাপায় দুই ছাত্রীর মৃত্যু

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে বেপরোয়া বাসের চাপায় নবম শ্রেণির দুই ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে।

শনিবার দুপুরে উপজেলার দৌলতদিয়া মডেল হাইস্কুলের সামনে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে দুরপাল্লার গোল্ডেন লাইন পরিবহনের একটি বাস তাদের চাপা দেয়।

দুর্ঘটনার পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী মহাসড়ক অবরোধ করেছে। এ সময় ঘাতক বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি অনেক যানবাহন ভাঙচুর করেন তারা।

নিহতরা হলো উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের যদু ফকির পাড়া গ্রামের আব্দুস ছালাম প্রামানিকের মেয়ে চাঁদনী আক্তার ও অমর আলী মোল্লার পাড়া গ্রামের জামাল বেপারীর মেয়ে জাকিয়া সুলতানা কেয়া। তারা দু’জনই দৌলতদিয়া মডেল হাইস্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী।

প্রত্যক্ষদর্শী স্কুলের শিক্ষক ও সহপাঠীরা জানায়, শনিবার দুপুরর ২টা থেকে শুরু হওয়া নবম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ন পরীক্ষায় অংশ নিতে ওই দুই শিক্ষার্থী বাড়ি থেকে রিকশাযোগে এসে নিজ বিদ্যালয়ের সামনে নামে। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির মধ্যে তারা ছাতা নিয়ে মহাসড়ক পারাপার হওয়ার সময় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ফরিদপুরগামী গোল্ডেন লাইন পরিবহনের একটি বাস বেপরোয়া গতিতে এসে তাদের চাপা দেয়। এতে তারা গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চাঁদনীকে মৃত ঘোষণা করেন। কিছুক্ষণ পর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় জাকিয়া সুলতানার মৃত্যু হয়।

গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা. সাহিদা পারভীন জানান, হাসপাতালে আনার আগেই একজনের মৃত্যু হয়েছিল। অপরজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরের সময় মৃত্যু হয়।

এদিকে এ ঘটানার পর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী ঢাকা-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে যানবাহনে ভাঙচুর চালায়। ঘাতক গোল্ডেন লাইনের বাসটিতে অগ্নিসংযোগ করে বিক্ষুব্ধরা। এ সময় পূর্বাশা পরিবহন নামে একটি বাসের চালক চুয়াডাঙ্গা জেলার ইসরাইল মল্লিক গুরুতর আহত হন। তাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভতি করা হয়েছে।

বেলা সাড়ে ৩টার দিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেছে বিক্ষুব্ধরা। এতে মহসড়কের দুই পাশে শতশত যানবাহন আটকা পড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Captcha loading...