১০ লাখ টাকা নিয়ে ব্র্যাক কর্মী উধাও

বালিয়াকান্দিতে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাকের গ্রাহকের ঋণের ১০ লক্ষাধিক টাকা নিয়ে প্রতিষ্ঠানের কর্মী মহসিন আলম উধাও হয়ে গেছেন। বিষয়টি স্বীকার করেছেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপক। এ ব্যাপারে বালিয়াকান্দি থানায় সাধারণ ডায়েরিও করা হয়েছে। মহসিন আলম ব্র্যাক বালিয়াকান্দি উপজেলা শাখার মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচির (প্রগতি) কর্মসূচি সংগঠক।

তিনি খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার বয়লাহারানীয়া গ্রামের ফজর আলী সানার ছেলে।

ব্র্যাকের গ্রাহক উপজেলার পারকুল গোহাইলবাড়ী গ্রামের ওবায়দুর রহমান জানান, চার বছর ধরে তিনি ব্র্যাকের গ্রাহক হয়েছেন। তিনি দুই লাখ টাকার ঋণের জন্য আবেদন করেন। গত ২১ অক্টোবর ঋণ আবেদন মঞ্জুর করা হয়। ওই দিন মহসিন আলম তাকে এক লাখ টাকা দিয়ে বলেন, এক লাখ টাকা নিলে এ টাকারই সুদ দিতে হবে।

বাকি এক লাখ টাকা পরে যখন নেবেন তখন থেকে সুদ দেবেন। কিন্তু পাস বইয়ে টাকার পরিমাণ এক লাখ উল্লেখ থাকায় তাকে প্রশ্ন করি। তখন মহসিন আলম বলেন, কিছু কাজ বাকি আছে। আপনি এক লাখ টাকা নিয়ে চলে যান। কাজ সম্পন্ন করে ফোন দিলে বাকি এক লাখ টাকা নিয়ে যাবেন। কিন্তু এরপর ফোন না দেওয়ায় তিনি ৩১ অক্টোবর অফিসে গিয়ে জানতে পারেন মহসিন আলম অফিসে নেই। এ ব্যাপারে তিনি ব্র্যাক মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচি (প্রগতি) শাখার ব্যবস্থাপকের কাছে অভিযোগ করেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কর্মসূচি সংগঠক মহসিন আলম বালিয়াকান্দি বাজারের ব্যবসায়ী ফারুকের দুই লাখ টাকা, নায়েব আলীর ৬৫ হাজার টাকা, ফরহাদ হোসেনের ৩০ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন মানুষের নামে ঋণ করে ১০ লক্ষাধিক টাকা নিয়ে গেছেন।

ব্র্যাক মাইক্রোফাইন্যান্স কর্মসূচি (প্রগতি) শাখার ব্যবস্থাপক হুমায়ন কবির জানান, গত ২৪ অক্টোবর একদিনের ছুটি নিয়ে মহসিন গ্রামের বাড়ি গেছে। এখনও ফিরে আসেনি। তার মোবাইল খোলা থাকলেও কল রিসিভ হচ্ছে না।

তিনি বলেন, অভিযোগ পাওয়ার পর ভুক্তভোগীদের সঙ্গে কথা বলেছি। এ ব্যাপারে বালিয়াকান্দি থানায় জিডি করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের নিয়ম অনুযায়ী মহসিনের ঠিকানায় চিঠিও পাঠনো হয়েছে। মহসিনের গ্রামের বাড়িতে লোক পাঠানো হয়েছিল। সেখানে তাকে পাওয়া যায়নি। বালিয়াকান্দি থানার ওসি আজমল হুদা জানান, এ ব্যাপারে সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Captcha loading...